১০ টি লক্ষণ যার মাধ্যমে বুঝতে পারবেন আপনার কম্পিউটার হ্যাক হয়েছে!

ইন্টারনেট এবং সাইবার জগতের বড় বড় সমস্যার মধ্যে অন্যতম একটি সমস্যা হল কম্পিউটার হ্যাক। আপনার অগোচরে হয়ত আপনার কম্পিউটার নানাভাবে হ্যাক হয়ে যেতে পারে ; অথচ হয়ত তা আপনি বুঝতেই পারছেন না। ইন্টারনেটে নিজের অজান্তেই হয়ত নানানরকম ম্যালিসিয়াস লিঙ্কে ক্লিক করে আপনি হ্যাকারদের নানানরকম টুলস আপনার কম্পিউটারে ইনস্টল করে নিচ্ছেন। যার ফলে আপনার কম্পিউটার এর সিস্টেম কোনো না কোনো ভাবে হয়ত হ্যাকারদের দখলে চলে যাচ্ছে। আজ আমি আলোচনা করব ১০ টি লক্ষন সম্পর্কে যার মাধ্যমে বুঝতে পারবেন যে, আপনার সিস্টেমটি হ্যাক হয়েছে।

অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার একাই ডিলিট হয়ে যাওয়া
আপনার কম্পিউটার চালু করার পর হঠাৎ করে দেখলেন যে, আপনার অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যারটি ডিলিট বা অানইনস্টল হয়ে গিয়েছে ; এক্ষেত্রে হতে পারে আপনার কম্পিউটারটটি কোনোভাবে হ্যাক হয়েছে। কেননা প্রতিটি অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যার অন্যান্য সফটওয়্যারের মত না । আপনি যখন এটিকে আনইনস্টল করতে যাবেন, তখন এটি ২-৩ বার আপনার থেকে নিশ্চিত হবে যে, আপনি আসলেই অ্যান্টিভাইরাসটিকে অান-ইনস্টল করতে চাচ্ছেন কিনা। সুতরাং আপনি যদি ভেবে থাকেন দূর্ঘটনা-বশত কোনো কারনে অ্যান্টিভাইরাসটি আনইনস্টল বা ডিলিট হয়ে গিয়েছে ; তবে তা ভাবা ভুল হবে। হ্যাকার কোনোভাবে আপনার কম্পিউটার এর অ্যান্টিভাইরাসকে ডিজেবল করার মাধ্যমে আপনার কম্পিউটারে ম্যালিসিয়াস অ্যাক্টিভিটি পরিচালনা করতে পারবে । সুতরাং আপনি যদি আপনার কম্পিউটারে দেখেন অ্যান্টিভাইরাস সফটওয়্যারটি আনইনস্টল হয়ে রয়েছে ; তবে আপনি নিশ্চিত থাকুন আপনার কম্পিউটারটি হ্যাক হয়েছে।

ফেক অ্যান্টিভাইরাস আপডেট
অনেকক্ষেত্রে আপনি যদি আপনার কম্পিউটার চালু করে কতগুলো ফেক অ্যান্টিভাইরাস সিকিউরিটি রিস্ক দেখতে পান ; তবে এটিও একটি সংকেত যে আপনার কম্পিউটারটটি কোনভাবে হ্যাক হয়ে রয়েছে। আবার অনেকসময় আপনার সামনে অ্যান্টিভাইরাস আপডেট করার ডায়ালগ বক্স আসতে পারে ; তবে সেখানে যদি লক্ষ্য করেন যে অ্যান্টিভাইরাসটির আইকন ভিন্ন বা আপনার কম্পিউটার এর অ্যান্টি ভাইরাসের মত নয় ; তবে নিশ্চিত আপনার কম্পিউটারটি হ্যাক হয়েছে।

পাসওয়ার্ড কাজ করছে না
ধরুন আপনি আপনার ফেসবুক আইডিতে লগইন করতে গিয়ে দেখলেন ; আপনার পাসওয়ার্ড আর কাজ করছে না; আর এর কারন হয়ত আপনার আইডিটি হ্যাক হয়ে গিয়েছে এবং আপনার আইডির পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করা হয়েছে। ব্যাপারটি আপনার কম্পিউটারে অন্য যেকোন প্রোগ্রাম এর সাথেও হতে পারে, আমি এখানে কেবল কম্পিউটার এর ফেসবুক অ্যাপ এর কথা বললাম। এক্ষেত্রে সর্বপ্রথম যা করনীয় তা হল; আপনার যে অ্যাকাউন্ট এর পাসওয়ার্ড কাজ করছে না ; নিশ্চয়ই তার সাথে কোন মোবাইল নম্বর বা ইমেইল লিংক করা আছে ; সেহেতু যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আপনি আপনার পাসওয়ার্ড টি বদলে নিন। আর বর্তমানে সকল গুরুত্বপূর্ন অ্যাকাউন্ট এর জন্য ২ স্তর ভেরিফিকেশন ব্যবস্থা রয়েছে তা অ্যাক্টিভেট করে নিন। যদি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট এভাবে হ্যাক হয়ে থাকে ; তবে আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে যদি কাউকে কোনো স্প্যাম মেসেজ এর সাথে লিংক পাঠিয়ে দেয়া হয়ে থাকে ; তবে আপনার বন্ধুদের সেসব লিংক ওপেন করতে মানা করুন।

সামাজিক মাধ্যমে বন্ধু বেড়ে যাওয়া
আর এই লক্ষনটিও আপনার কম্পিউটারের মাধ্যমে সামাজিক যোগাযোগ অ্যাকাউন্ট হ্যাক এর মধ্য দিয়ে হয়ে থাকে। আপনি জানেন আপনার ফেসবুক ফ্রেন্ড এর সংখ্যা ৯০০ তবে পরেরদিন আপনি দেখলেন আপনার ফ্রেন্ড সংখ্যা ২০০ বেড়ে ১১০০ হয়ে গিয়েছে। আর নতুন এমন অনেক ফ্রেন্ড যুক্ত হয়েছে যাদেরকে আপনি চেনেনও না। এক্ষেত্রে ভেবে নিন আপনি হ্যাক এর স্বীকার হয়েছেন। এক্ষেত্রে আপনার চ্যাট চেক করুন, আপনার পক্ষ থেকে কোনো স্প্যাম মেসেজ পাঠানো হয়েছে কিনা, আর যদি পাঠানো হয়ে থাকে ; তবে সেগুলো সম্পর্কে আপনার বন্ধুদের সতর্ক করুন। সাধারণত ফেসবুক এর সাথে নানা রকম কুইজ ওয়েবসাইট এর সংযোগ করলে এরকম হয়। আমাদের দেশে বহু মানুষ এসব কুইজ ওয়েবসাইট এ ফেসবুক আইডি দিয়ে লিঙ্ক করে।

ব্রাউজারে সন্দেহজনক আইকন
আপনি আপনার গুগল ক্রোম ব্রাউজার ওপেন করে দেখলেন যে, হোমপেজে বুকমার্ক বারে অনেকগুলো সন্দেহজনক আইকন সহ টেক্সট বুকমার্ক আকারে রয়েছে। তবে কখনই তাতে চাপ দেবেন না। কারন এসবের মধ্যে নানা ক্ষতিকারক কোড দিয়ে দেয়া হয়েছে ; আর আপনি কোনভাবে সেগুলোতে ক্লিক করার মাধ্যমেই সেগুলো অ্যাক্টিভেট হয়ে যাবে। আপনি হয়ত এসব ক্ষতিকারক জিনিসে চাপ দিয়ে হ্যাকার এর কাজকে আরও সহজ করে ফেলবেন ; এমন অবস্থায় আপনাকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সেই ব্রাউজারকে আনইনস্টল করে ফেলতে হবে। পাশাপাশি তাকে পুরোপুরিভাবে ডিলিটও করে ফেলতে হবে।

আরো পড়ুন: ফেসবুক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হলে কি করবেন? [কমপ্লিট গাইড]
একা একা কার্সর নড়াচড়া করছে
আপনি কম্পিউটারে কোনো কাজ করতে করতে হঠাত লক্ষ্য করলেন যে, আপনার মাউস কার্সর একা একা নড়াচড়া করছে। আপনি দেখলেন যে আপনার কোনরকম কন্ট্রোল ছাড়াই স্ক্রীনে আপনার মাউস কার্সর নড়াচড়া করছে এবং কোনকিছু হাইলাইট বা মুভ করার চেষ্টা করছে ; তবে নিশ্চিত থাকুন আপনার কম্পিউটার হ্যাক হয়েছে। এক্ষেত্রে আপনার ইন্টারনেট সংযোগটি সাথে সাথে বন্ধ করে দিন এবং ভালো অ্যান্টি ভাইরাস দিয়ে কম্পিউটারটি একবার স্ক্যান করে নিন।

হার্ডওয়্যার অচল
আপনি জেনে অবাক হতে পারেন যে, আপনার কম্পিউটার সিস্টেম হ্যাক হলে তা কেবল আপনার সফটওয়্যারকে না, এমনকি আপনার কম্পিউটার এর সাথে যুক্ত হার্ডওয়্যারকেও ডিজেবল করে দিতে পারে। অনেক ক্ষেত্রে আপনার প্রিন্টার ব্লাঙ্ক কাগজ প্রিন্ট করছে একা একা ; এটা আপনার সিস্টেম হ্যাক হওয়ার অন্যতম একটি কারন। তাছাড়াও এর পাশাপাশি আপনার ওয়েবক্যাম থেকে শুরু করে কী বোর্ড, মাউস পর্যন্ত ডিজেবল হয়ে যেতে পারে এমনকি হ্যাকার এর নিয়ন্ত্রনে চলে যেতে পারে।

ব্রাউজারে অসংখ্য ট্যাব
আপনি গুগল এর সার্চ রেজাল্ট পেজ থেকে কোনো ওয়েব লিঙ্কে ক্লিক করলেন ; কিন্তু ক্লিক করার সাথে সাথেই আপনার ব্রাউজারে অসংখ্য ম্যালিসিয়াস ট্যাব একা একা ওপেন হতে শুরু করল। এরকম হলে ভাবতে হবে আপনার কম্পিউটার সিস্টেমটি হয়ত হ্যাক হয়েছে। অনেক ক্ষেত্রে কতগুলোর ওয়েবসাইটে বিল্টইন পপআপ বিজ্ঞাপন থাকার ফলে এমন সমস্যা হতে পারে। তবে আপনার বিশ্বাসযোগ্য ওয়েবসাইট, যেমন ধরুন গুগল থেকে টেকহাবস এর কোনো লিঙ্কে ক্লিক করলে যদি এমন হয় ; তাহলে নিশ্চিত আপনার কম্পিউটারটি হ্যাক হয়েছে। আর এক্ষেত্রে আপনাকে কম্পিউটার সিকিউরিটি স্পেশালিষ্ট এর সরণাপন্ন হওয়া উচিত।

আপনার অজান্তেই আপনার তথ্য ইন্টারনেটে চলে গিয়েছে
আপনি হয়ত নানাসময় নানা সংবাদ দেখেছেন যে, অনেক সেলিব্রিটির নানা ছবি বা গোপন তথ্য ইন্টারনেটে ফাঁশ হয়ে গিয়েছে। আর এমন একটি পরিস্থিতি কিন্তু আপনার সাথেও হতে পারে। আপনার এমন গুরুত্বপূর্ণ বা যেকোনো তথ্য আপনার কম্পিউটারে রয়েছে, যা হয়ত আপনি কখনও উন্মুক্ত করতে চান না ; অথচ আপনি দেখলেন তা কোনোভাবে সামাজিক মাধ্যম বা ইন্টারনেটের অন্য কোথাও ছড়িয়ে গিয়েছে। আর এটি নিশ্চিত লক্ষন আপনার কম্পিউটার হ্যাক হয়েছে। এক্ষেত্রে আপনার কম্পিউটারের মাধ্যমে যদি আপনি কোনোদিনও ব্যাংক কার্ড ইউজ করে থাকেন ; তবে কার্ড এর ট্রানজেকশন হিস্টোরি চেক করুন। যদি আপনার কার্ড থেকে দেখেন কোনো নূন্যতম ট্রানজেকশনও আপনার অগোচরে করা হয়েছে ; তবে সাথে সাথে সেই কার্ডটি ডিলিট করুন।

ওয়েবক্যাম এর সন্দেহজনক আক্টিভিটি
আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপ এর ওয়েবক্যাম এর ইন্ডিকেটর লাইট কি হঠাৎ হঠাৎ জ্বলে উঠছে? তবে এটি লক্ষন হয়ত আপনার সিস্টেমটি হ্যাক হয়ে রয়েছে, আর ওয়েবক্যাম ব্যবহার করে আপনার ছবি বা ভিডিও নেয়া হচ্ছে। এমন অবস্থায় করুন ব্যাকগ্রাউন্ডে এমন কোনো প্রোগ্রাম চলছে নাকি, যার জন্য ওয়েবক্যাম দরকার হয়। যদি না চলে তাহলে আপনার সিস্টেম নিশ্চিত হ্যাক হয়েছে। আর এই অবস্থায় আপনাকে একজন কম্পিউটার এক্সপার্ট এর সরনাপন্ন হতে হবে।

আশা করি আজকের এই আর্টিকেলটি আপনার ভালো লেগেছে। আসলে নিজে সব দিক দিয়ে সতর্ক থাকলে কোনভাবেই আমরা এসব সমস্যার মুখোমুখি হব না। বর্তমান সময়ে বিশেষ করে ইন্টারনেটে প্রতিটি পদক্ষেপ এর ক্ষেত্রে আমাদেরকে খুবই সতর্ক হতে হবে। প্রতি মুহুর্তে আমরা কি কি ক্লিক করছি, তা অবশ্যই নজরে রাখতে হবে। একটা ভুল ক্লিক এর মাধ্যমে আমরা আমাদের কম্পিউটার হ্যাকারদের হাতে সপে দিতে তো পারিই ; পাশাপাশি র‍্যানসমওয়্যার এর মত ভয়ানক কিছু কম্পিউটারে ঢুকিয়ে নেয়াও অস্বাভাবিক কিছু নয়।

তৌহিদুর রহমান মাহিন

Related posts

Leave a Comment